এবার সব সহ্যের সীমা পার, এবার ঘুরে দাঁড়ানোর সময়! ‘শিমুলে’র সিদ্ধান্তে বেজায় খুশি দর্শক

WhatsApp Channel Join Now
Google News Follow

জি বাংলায় (zee bangla) বেশ কিছু ধারাবাহিক শুরু হয়েছে। যেগুলির মধ্যে থেকে এখন চর্চার কেন্দ্র বিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar kache koi moner kotha)। সদ্য শুরু হওয়া এই ধারাবাহিক প্রথম থেকেই লাইম লাইট -এ রয়েছে। এক কথায় বলতে গেলে অভিনেত্রী মানালি দে (Manali Dey) -র সফল কামব্যাক এই সিরিয়াল।

এই সিরিয়ালের দৌলতে সর্বত্র চর্চায় রয়েছেন মানালি। গৃহস্থ বাড়ির মেয়ে বউরা ভীষণ পছন্দ করছে এই গল্প। এখানে যেন তাদের কথাই বলা হয়। এই ধারাবাহিকের প্রধান চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে। তার চরিত্রের নাম শিমুল। প্রথম থেকেই তাকে নিয়ে ঘটনা আবর্তিত হচ্ছে। মানালির শাশুড়ির চরিত্রে অভিনয় করছেন রিতা দত্ত চক্রবর্তী।

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় সর্বাধিক চর্চিত হচ্ছে ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar kache koi moner kotha new twist) ধারাবাহিকটি। সদ্য শুরু হওয়া এই ধারাবাহিক অসাধারণ স্টোরিলাইন, অভিনয় ও সংলাপের কারণে আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহতেই টিআরপি তালিকায় সেরা দশে জায়গা করে নিয়েছে। এটি জি বাংলায় সম্প্রচারিত হওয়া একটি ধারাবাহিক। গৃহস্থ বাড়ির মেয়ে বউরা ভীষণ পছন্দ করছে এই গল্প। এখানে যেন তাদের কথাই বলা হয়।

Kar Kache Koi Moner Katha
Kar Kache Koi Moner Katha

বিয়ের পর থেকে কেবলমাত্র তার ‘ভুল’ ধরেই চলেছে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। বিশেষত তার শাশুড়ি। শিমুলের কোনও কিছুতেই সন্তুষ্ট নন তার সাথে। উপরন্তু ‘মায়ের বাধ্য ছেলে’ পরাগ নকল ‘পুরুষত্ব’ (Kar kache koi moner kotha new promo) দেখাতে ওস্তাদ। কিভাবে বউকে শাসনে রাখতে হয় তারই নমুনা দেখিয়েছে গত পর্বে ও আজকের পর্বে। বাড়িতে গান-বাজনার আসর বসানোই হয়েছে শিমুলের জীবনের সবথেকে বড় ভুল।

আসলে পাড়ায় একটি অনুষ্ঠান থাকার দরুন তাকে রিহার্সালের দায়িত্ব দেওয়া হয়। রিহার্সালের জন্য যেতে চাইলে শাশুড়ির কাছ থেকে পারমিশন পায়নি সে। তাই বাধ্য হয়ে বাড়িতেই রিহার্সাল করানোর সিদ্ধান্ত নেয়। যা মোটেও ভালো চোখে দেখেননি শিমুলের শাশুড়ি। তার ভাষ্যমতে, ভদ্র বাড়ির মেয়ে (Kar kache koi moner kotha new episode) বউরা নাচ, গান করে না। এই একই মত তার স্বামী পরাগেরও।

Kar Kache Koi Moner Katha
Kar Kache Koi Moner Katha

শিমুলের এই কাজ তাদের কাছে অনেক বড় অপরাধ। আর অপরাধ করলে শাস্তি তো পেতেই হবে। সেই শাস্তি দেবে কে? অবশ্যই যাদের বাড়ি তারা। শিমুল কেবলমাত্র সেই বাড়ির বউ। তারপর কর্তব্য শ্বশুর বাড়ির লোকের কথায় ওঠা (Kar kache koi moner kotha today episode) আর বসা এবং তাদের ফাই ফরমাস খাটা। এই কথা সরাসরি না বললেও, এতদিনে বুঝিয়ে দিয়েছে তা শ্বশুর বাড়ির লোকেরা। পরাগ শিমুলকে বলে, বাইরে কেউ ঘরে আসলে বা শিমুল যদি বাড়ির বাইরে যায় তাহলে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেবে। কিন্তু শিমুল বর্তমান যুগের মেয়ে, মুখ বুজে অন্যায় সে সহ্য করবে না।

এরপর শশুর বাড়ির সমস্ত বাধা আর অন্যায় শাসনকে তোয়াক্কা না করেই মঞ্চে নাচ পরিবেশন করে সে। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল শিমুলের শ্বশুর বাড়ির লোকও। মুখ ঢেকে নাচ করেছিল সে। তার নাচ দেখে প্রশংসায় রীতিমতো পঞ্চমুখ ছিল তার শ্বশুর বাড়ির লোকেরা। কিন্তু মুখ দেখার পরেই শিমুলের শাশুড়ি গর্জে উঠলেন তার ওপর। সকলের সামনে মঞ্চের ওপর চড় মারতেও পিছপা হননি তিনি। এরপর বাড়িতে তুমুল অশান্তি হয়।

আর পড়ুন:  রূপে লক্ষ্মী গুণে সরস্বতী, সৌন্দর্যে বলিউড নায়িকাদেরও দশ গোল দেবেন “কার কাছে কই মনের কথা”র পরাগের বাস্তবের স্ত্রী

পরাগের মা কোনোমতেই শিমুলের সাথে সংসার করতে নারাজ। তাই শিমুলকে চলে যেতে বলে পরাগ। নিজের আত্মসম্মান বজায় রেখে শ্বশুর বাড়ি ছাড়ে শিমুল। বর্তমানে বাপের বাড়িতে আছে সে। চেষ্টা করছে কাজ জোগাড় করবেন। নিজের দাদাদের ওপর বোঝা হতে চাইছে না সে। আর দাদারাও যে খুব একটা ভালোভাবে তার চলে আসা নেয়নি, তা খুব স্পষ্ট ভাবেই বোঝা যাচ্ছে। অপরদিকে,বিপাশারা শিমুলের শ্বশুরবাড়ি হানা দেয়। পলাশ, পরাগ আর তাদের মা কে ধমকে বোঝানোর চেষ্টা করে। পরে পুলিশের ভয় দেখিয়ে তাদের নিয়ে যায় শিমুলের বাপের বাড়ি। এরপর কী সিদ্ধান্ত নেবে শিমুল তা জানতে হলে আগামী পর্ব অবশ্যই দেখুন।

(সব খবর সঠিক সময় পাওয়ার জন্য ফলো করুন আমাদের Facebook Page)

Leave a Comment