লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Pen Card 2024: অতীত PAN! এইবার শিক্ষাক্ষেত্রে নয়া কার্ড চালু করবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার! মিলবে একগুচ্ছ সুবিধা! জানুন বিস্তারিত

Published on:

WhatsApp Group Join Now

Pen Card 2024: শিক্ষা ব্যবস্থায় বিরাট পরিবর্তন আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তৈরি হবে ছাত্রছাত্রীদের নিজস্ব আইডেন্টিটি। আর তা করা হবে একটি কার্ডের মাধ্যমে। চালু হতে চলেছে পেনকার্ড। সকলকেই দেওয়া হবে এই পেন। পেন বলতে লেখার জন্য কলম নয় বরং একটি স্বতন্ত্র কার্ড যার মাধ্যমে ছাত্র কিংবা ছাত্রীর পরিচয় জানা যাবে। শিক্ষা ক্ষেত্রে এমনই এক যুগান্তকারী ব্যবস্থা আনতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

WhatsApp Group Join Now

Pen Card 2024:

জেনে নিন, পেনকার্ড কী?

প্রতিটি মানুষের ঠিক যেমন একটি বিশেষ আধার এবং প্যান কার্ড নম্বর থাকে তেমনভাবেই কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষার্থীদের জন্য পেন নাম্বার বা পার্মানেন্ট এডুকেশন নাম্বার চালু করতে চলেছে। স্কুল কলেজ কিংবা যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে গেলে এখন থেকে শিক্ষার্থীদের এই পেন কার্ড থাকতে হবে। এই কার্ড ছাড়া শিক্ষাক্ষেত্রে কোনোভাবেই অনুমতি দেওয়া যাবে না। দেশের যে কোন ছেলে মেয়ে এই পেন কার্ড পেতে পারেন। এই কার্ডে একটি ১১ ডিজিটের কোড নম্বর থাকবে পাশাপাশি প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য আলাদা আলাদা পরিচয় পত্র গঠন করা হবে। গোটা দেশজুড়ে বিভিন্ন রাজ্যের বিভিন্ন জেলার স্কুলগুলিতে এই পেন কার্ড ব্যবহার করা হবে।

কার্ডের সুবিধা:

এই কার্ডের মধ্যে বিভিন্ন সুবিধা লিপিবদ্ধ থাকবে। কেন্দ্রের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়েছে দেশের যেকোনো প্রান্তের স্কুল কলেজ অথবা শিক্ষাগত ইনস্টিটিউশনে ভর্তি হওয়ার আগে আবেদনকারীদের এই কার্ড নম্বর দেখানো বাধ্যতামূলক! আর এই নম্বর দেখে তবেই তাদের ভর্তি নেওয়া হবে। এই কার্ড দেখাতে পারলে তবে শিক্ষার্থীরা দেশের যেকোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন রকম অসুবিধা ছাড়াই ভর্তি হতে পারবেন। এমনকি দ্রুত মাইগ্রেশন হবে। এতে এক স্কুল থেকে অন্য স্কুলের স্থানান্তরকরণের সমস্যা বা ঝক্কি কমে যাবে। এছাড়াও স্কলারশিপ চাকরি অথবা বিভিন্ন সরকারি সুবিধা পেতে এই কার্ড বিশেষ সহায়ক হবে। ভুয়ো ডিগ্রী ব্যবহার করছেন যারা তাদেরকেও শনাক্ত করতে সহায়তা করবে এই কার্ড।

জেনে নিন, কিভাবে বানানো হবে এই কার্ড?

প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের এই পেন কার্ড বানানোর জন্য রয়েছে কিছু সহজ নির্দেশিকা। প্রতিটি স্কুল কর্তৃপক্ষ এই কার্ড বানানোর দায়িত্ব নিয়েছে তাই শিক্ষার্থীদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। নির্দিষ্ট সময় অনুযায়ী তাদের গুরুত্বপূর্ণ নথি সংগ্রহ করে তৈরি হবে এই কার্ড।

আরও পড়ুন: Summer Holiday: প্রায় দেড় মাস পর খুলছে রাজ্যের বিভিন্ন স্কুল! কবে থেকে শুরু পঠনপাঠন? জানুন বিস্তারিত

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উদ্যোগ:

এই কার্ড তৈরির জন্যই বিভিন্ন রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর মারফত ওয়েবসাইট চালু করা হয়েছে। তেমনভাবে ‘বাংলার শিক্ষা’ পোর্টালে এই সুবিধা উপলব্ধ। রাজ্যের প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর আইডেন্টিটি নথিভুক্ত করা হয়েছে এই পোর্টালে। পেন কার্ড তৈরি হলে বাংলার শিক্ষা আইডেন্টিটি থেকেও সেটা মার্জ করা যেতে পারে। তবে ছাত্র ছাত্রীদের এখনও অ্যাক্সেস দেওয়া হয়নি। অ্যাক্সেস পেলে ছাত্রছাত্রীরা নিজেরাই এই কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন।

About Author
Neha Basu

বিগত প্রায় ২ বছর ডিজিটাল মিডিয়ার কাজের সঙ্গে যুক্ত। যে কোনো ধরনের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।