Ayodhya Ram Mandir: দলিত কৃষকের জমিতেই রাম মন্দির; জানেন কে সেই ব্যক্তি!

Ayodhya Ram Mandir: ২২ শে জানুয়ারি অযোধ্যা নগরীতে উদ্বোধন হয়েছে বহু প্রতীক্ষিত রাম মন্দিরের (Ayodhya Ram Mandir)। এই মন্দিরের জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উপহার পাঠিয়েছেন বহু মানুষ। ইতিমধ্যেই জনসাধারনের জন্য খুলে গিয়েছে রামমন্দিরের (Ayodhya Ram Mandir) দরজা। বালক রামের আদলে তৈরি হয়েছে রামলালার মূর্তি। উত্তর ভারতের বিভিন্ন মন্দিরের দেব-দেবীর থেকে এই মন্দিরের মূর্তি সম্পূর্ণ আলাদা। রামলালার মূর্তিতে দক্ষিণী ছাপ স্পষ্ট। এই রামলালার মূর্তি তৈরিতে একখণ্ড পাথর ব্যবহার করায় খুশি কর্ণাটকের এক দলিত কৃষক। শনিবার তিনি জানিয়েছেন, রাম মন্দির নির্মাণের জন্য তাঁর সম্পত্তির একটি অংশ দান করবেন তিনি।

মাইসুরুর নিকটবর্তী গুজ্জেগৌদানাপুরা গ্রামের ৭০ বছর বয়স্ক রামদাস এইচ জানিয়েছেন, ‘অরুণ যোগীরাজের তৈরি রামলালা মূর্তির জন্য তাঁর সম্পত্তি থেকে একটি পাথরের খণ্ড ব্যবহৃত হয়েছিল। শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র অযোধ্যায় যোগীরাজের তৈরি মূর্তিটি বেছে নেওয়ার জন্য তিনি ভীষণ খুশি।’

রামদাস বলেন, তিনি তাঁর ২.১৪ একর জমিতে কৃষি কাজের জন্য পাথর পরিষ্কার করতে একজন স্থানীয় কোয়ারি ঠিকাদারকে কাজে নিযুক্ত করেছিলেন এবং যোগীরাজ তার মধ্যে রামলালার মূর্তি তৈরির জন্য একটি পাথর বেছে নেন। রামদাস জানিয়েছেন, তাদের দক্ষিণ দিকে মুখ করে থাকা অঞ্জনেয়া মন্দির দেখে মনে হচ্ছে অঞ্জনেয়া মূর্তি যেন সেই জায়গার দিকে তাকিয়ে আছে যেখান থেকে রামলালা মূর্তির জন্য পাথর খনন করা হয়েছিল। তাই সেখানে রাম মন্দির (Ayodhya Ram Mandir) নির্মাণের জন্য চার গুন্টা জমি দান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রামদাস। যদিও অযোধ্যায় রাম মন্দির উদ্বোধনে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি রামদাসকে।

Ayodhya Ram Mandir
Ayodhya Ram Mandir

পাথর সরানোর কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত স্থানীয় কোয়ারি ঠিকাদার শ্রীনিবাস নটরাজ জানিয়েছেন, একটি বিশাল পাথরের ব্লককে তিনভাগ করে তার মধ্যে এক ভাগ নেন যোগীরাজ। এরপর পাথরের ব্লক ভরত, লক্ষ্মণ ও শত্রুঘ্নের মূর্তি খোদাইয়ের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।নটরাজ আরও জানিয়েছেন, জমিতে অবৈধভাবে খনন করায় খনি ও ভূতত্ত্ব বিভাগ তাকে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হয়।

পাথরের ব্লক ডেলিভারি দেওয়ার পূর্বে কিছু তথ্যদাতা দফতরে খবর পাঠিয়ে দেন, ফলস্বরূপ তাঁকে শাস্তি দেওয়া হয়। ২২ জানুয়ারি রামমন্দির উদ্বোধনে আমন্ত্রিত না হওয়ায় নটরাজ বলেন, পাথরের ব্লকটি অযোধ্যায় নিয়ে যেতে প্রায় ৬ লক্ষ টাকা খরচ করেছেন তাঁরা। কিন্তু ট্রাস্টের সঙ্গে যুক্ত শ্রীনাথ নামক এক ব্যক্তির থেকে এখনও পর্যন্ত পেয়েছেন মাত্র ১.৯৫ লক্ষ টাকা।

আরও পড়ুন: Kanchan Mullick: নতুন বছরেই দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক ও শ্রীময়ী চট্টরাজ

 

 

 

Leave a Comment