লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Baishakhi Banerjee: দুষ্টুকেই বেশি ভালোবাসে শোভন! ভালো মা হতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ বৈশাখীর

Published on:

Baishakhi Banerjee: বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে কমবেশি সকলেরই জানা। আর যখন বৈশাখীর নাম ওঠে তখন আর একটা নাম নিজে থেকেই উঠে আসে, তিনি হলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। নিজেদের প্রেমের সম্পর্কের কারণেই শিরোনামে থেকেছেন তারা। কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা রাজ্যের মন্ত্রী শোভন। নিজেদের প্রেমের সম্পর্কের জন্য অনেক অশালীন কটাক্ষের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাদের। যদিও এসবে থোড়ায় কেয়ার তাদের। কর্মসূত্রে আলাপ হয়েছিল দুজনের, প্রেমের সম্পর্কে জড়াতেই ‘বুড়ো বয়সের প্রেম’ আখ্যা দেওয়া হয়েছিল তাদের সম্পর্ককে। যদিও সেই ট্রলিং কে পাত্তা না দিয়ে দিব্যি আছেন দুজনে। বৈশাখীর মেয়েও থাকেন তাদের দুজনের সঙ্গেই।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

Baishakhi Banerjee Talks About Motherhood:

পূর্বে বৈশাখীর বিয়ে হয়েছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজির অধ্যাপক মনোজিৎ মন্ডলের সঙ্গে। তিনি নিজেও মিলি আল-আমিন কলেজের অধ্যক্ষা ছিলেন। ন বছর বৈবাহিক জীবন কাটানোর পর ও তাদের দাম্পত্য টেকেনি। 2022 সালের এপ্রিলে ডিভোর্স হয়ে যায় মনোজিৎ এবং বৈশাখীর। সেই বিচ্ছেদের সিলমোহর দিয়েছিল আলিপুর আদালত। এত বছর বৈবাহিক জীবন কাটানোর পরও একরাত ও শান্তিতে সংসার করতে পারেননি বলেই তিনি জানিয়েছেন। এছাড়া আগেও বহু বারপ্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ এনেছিলেন বৈশাখী। মাদারস ডে তেও মনোজিৎকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বৈশাখী (Baishakhi Banerjee)।

তিনি জানিয়েছেন খুব খারাপ স্বামী হওয়ার সাথে সাথে মনোজিৎ একজন খুব খারাপ এবং কর্তব্য জ্ঞানহীন বাবাও। তিনি জানান তাদের মেয়ের সামনেই বিকৃত যৌন সংযোগ করতে বাধ্য করতে মনোজিৎ। আফসোসের সাথে জানান সেই কারণে ‘খুব ভালো মা’ হতে পারেননি তিনি। পরিস্থিতির চাপেই এমনটা হয়েছিল। তিনি জানান তাদের মেয়ের ডিজনিল্যান্ড দেখার খুব ইচ্ছা। কিন্তু মেয়ের উপর বাবার ‘ভিজিটিং রাইটস’ থাকার কারণে বাইরে যেতে গেলে বাবার অনুমতিরও প্রয়োজন। সেই অনুমতি মনোজিৎ দেয় নি উপরোক্ত মেয়ে তার কাছে ফোন করে অনুমতি চাইতে গেলে তাকে খোঁচা মেরে তিনি বলেন ‘তোমার মায়ের তো ক্ষমতাশালী সঙ্গী আছে, দেখি কি করে যাও’।

বৈশাখী (Baishakhi Banerjee) জানান শোভনের আগেও তাকে অনেক পুরুষই বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন কিন্তু শোভনের মতো তার মেয়েকে কেউ আগলে নেয়নি। মেয়ের প্রতি নিজের বাবার থেকে বেশি দায়িত্বপরায়ণ শোভন। সে কর্তব্যবোধই বৈশাখীকে বারবার চমকে দেয়। শোভন নিজের মেয়ের থেকে বেশি যত্নে রেখেছে মহুলকে, জানান তিনি। তিনি আরো বলেন কোনদিনই তার মেয়ে শোভনকে বাবা বলে ডাকতো না কারণ বৈশাখী কোনদিনই শোভন কি বাবা বলে ডাকতে শেখায় নি। তবে স্বেচ্ছায় তার মেয়ে শোভনকে আদুরে নামে ‘দুষ্টু’ বলে ডাকে। যদিও এই নাম শোভন নিজেই বলে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: DA Hike: ভোটের পরেই DA নিয়ে বিরাট ঘোষণা! সরকারি কর্মীদের জন্য ফের সুখবর

যদিও মায়ের সহবাস নিয়ে মেয়েকেও কম কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়নি। তবে সেই কটা খুকি মুহুলের মনকে ঈর্ষান্বিত করেছে কখনো? বৈশাখী জানান একবার তিনি নিজেই মুহুলকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন তিনি কাকে সবথেকে বেশি ভালোবাসেন। জবাব শুনে রীতিমত চমকে উঠেছিলেন বৈশাখী (Baishakhi Banerjee)। এক রত্তির গলায় স্পষ্ট বোঝা গিয়েছিল অভিমানের ভাঁজ। মহলের উত্তর ছিল, ‘তুমি দুষ্টুকে সবার থেকে বেশি ভালবাস।’ বৈশাখী আরও যোগ করে বলেন, ‘মা তুমি আমাকে ছেড়ে থেকেছ, কিন্তু দুষ্টুকে ছাড়া থাক না’।

About Author
Adhrit Roy

বিগত প্রায় চার বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত। যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।