লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Ambubachi 2024: অম্ববাচী চলাকালীন ভুলেও করবেন না এই কাজগুলি! পড়তে হতে পারে বিপদের মুখে

Published on:

WhatsApp Group Join Now

Ambubachi 2024: মনে করা হয় আষাঢ় মাসের প্রথম সপ্তাহে রজস্বলা হয়ে থাকে ধরিত্রী মা। আর সেই কারণেই পালন করা হয় অম্বুবাচী। এই অম্বুবাচীতে একদিকে যেমন মাতৃ মূর্তি পূজা করা অন্যদিকে মাটির খনন করা নিষিদ্ধ।

কামাখ্যায় পুজো:

অম্বুবাচী উপলক্ষে মূল পূজো অনুষ্ঠিত হয় আসামের কামাখ্যা মন্দিরে।৫১ সতী পিঠের একটি হল এই কামাখ্যা! মনে করা হয় এখানেই দেবী সতীর যোনি পতিত হয়েছিল। আর সেই থেকেই এখানে প্রতি বছর পালন করা হয় অম্বুবাচী । অম্বুবাচী উপলক্ষে মায়ের মন্দিরের দরজা বন্ধ থাকলেও বসে মেলা দূরদূরান্ত থেকে বহু সাধু সন্তরা এসে উপস্থিত হন। এই অম্বুবাচী তিথির পিছনে রয়েছে বিরাট এক রহস্য। আসলে প্রতিটি মহিলারাই প্রতিমাসে রজস্বলা হয়ে থাকেন।

অম্বুবাচীর কারণ:

দেবী শক্তি তিনি মাতৃমূর্তির এক প্রতিরূপ। তাই তিনিও ঋতুমতি হয়ে থাকেন। পৃথিবীকে মা হিসেবে উল্লেখ করা রয়েছে সনাতন ধর্মে তাই স্বাভাবিকভাবেই আর ৫ জন মহিলার মতন ধরিত্রীও ঋতুমতি হন। প্রাচীন কৃষি ব্যবস্থার সঙ্গেও অম্বুবাচীর বিশেষ সংযোগ রয়েছে। ঋতু কাল শেষ হলে তবে এই সন্তান ধারণ করতে পারেন নারীরা তেমনি কৃষিতে ফসল ফলানোর জন্য এবং বেশি পরিমাণে ফসল আহরণ করবার জন্য এই বিশেষ সময় ফসল-কর্ষণ বন্ধ থাকে। অম্বুবাচী চলাকালীন বিধিনিষেধ মানতে হয় যা মানলে সংসারের মঙ্গল হয়। আর না মানলে সংসারে ক্ষতি হতে পারে। সংসারের কল্যাণের জন্য তিন দিন অবশ্যই অম্বুবাচী সংক্রান্ত এই নিয়ম মানা বাধ্যতামূলক। এই অম্বুবাচীর সময় কি কি করা যায় না চলুন দেখে নেওয়া যাক

অম্বুবাচী চলাকালীন কি করবেন না:
  • অম্বুবাচী চলাকালীন কোন বিশেষ পুজো করা সম্ভব নয়।
  • লাল কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখতে হয় কালি দুর্গা জগদ্ধাত্রী বিপদতারিনী শীতলা চন্ডী মায়ের মূর্তি।
  • এই অম্বুবাচী উৎসবকে কেন্দ্র করে মেলা বসে গুয়াহাটির কামাখ্যায়। অম্বুবাচী তিথি চলাকালীন কোনরকম মন্ত্র পাঠ করা চলে না।
  • ধুপ এবং প্রদীপ জ্বালিয়ে প্রণাম করে নিলেই চলে। অম্বুবাচীতে কোন শুভ কাজ করা যায় না।
  • অম্বুবাচী চলাকালীন কৃষি কাজ কিংবা বৃক্ষরোপণ করা একেবারেই চলবে না।। এই তিনদিন বেশ কিছু কাজ করলে অবশ্য কোনরকম সমস্যা হয় না।
অম্বুবাচী চলাকালীন কি কি করবেন:
  • অম্বুবাচী চলাকালীন গুরু পুজো করতে কোন বাধা নেই।
  • গুরু দত্ত যে কোন মন্ত্র জপ করতে পারেন।
  • অম্বুবাচী চলাকালীন তুলসী গাছে অবশ্যই জল দেবেন এবং গোড়া দিয়ে মাটি উঁচু করে দিন।
  • যারা শক্তির মন্ত্রে দীক্ষিত তারা মন্ত্র পাঠ করতে পারেন।
  • অম্বুবাচীর পর খুলে দিন দেবীর আচ্ছাদন।
  • দেবী মূর্তিকে ভালোভাবে স্নান করাতে হবে।
  • দুধ এবং আম দিয়ে স্নান করালে দেবী সন্তুষ্ট হন।
  • অম্বুবাচী নিবৃত্তির পর নানান আচাড় পালন করা হয়।

আরও পড়ুন: Summer Vacation: আবার বেড়ে গেল গরমের ছুটি! নির্দেশিকা জারি শিক্ষা দপ্তরের

About Author
Adhrit Roy

বিগত প্রায় চার বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত। যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।