লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Kajol-Rani: শ্যুটিং ফ্লোরে কথা বলতেন না কাজল-রানী! দুই বোনের সংঘাত প্রকাশ করলেন করণ জোহর

Published on:

WhatsApp Group Join Now

Kajol-Rani: বলিউডের ৯০ দশকের ছবি গুলির মধ্যে আজও দর্শকদের কাছে জনপ্রিয় হল করণ জোহরের ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’। এই ছবিতে প্রথমবারের মতন একসাথে দেখা গিয়েছিল কাজল ও রানী মুখার্জী দুই বোন কে। এই ছবি বন্ধুত্ব, প্রেমের সমীকরণ সবকিছু পাল্টে দিয়েছিল দর্শকদের কাছে। কিন্তু শোনা যায় এই ছবির শ্যুটিং চলাকালীন নাকি কাজল রানী একে অপরের সঙ্গে কথা বলতেন না।

সিনেমার সেটে যখন অন্যান্য অভিনেতা অভিনেত্রীরা একে অপরের সঙ্গে হাসি ঠাট্টায় মেতে উঠতেন তখন রানী এবং কাজল যতটা পারতেন একে অপরকে এড়িয়ে চলতেন। করণ জোহরের জনপ্রিয় টিভি শো কফি উইথ করণ শো তে এসে এই নিয়ে খোলাখুলি কথা বলেন তারা।

এই প্রসঙ্গে কাজল বলেন “বিষয়টা একেবারেই তেমন নয়। আমাদের মধ্যে কোন দূরত্ব ছিল না সেই ভাবেই। আসলে আমরা যখন অভিনয়ে জগতে এসেছি তখন বেশ লড়াই করতে হতো আমাদের, তাই নিজের অভিনয় নিয়ে বেশ ব্যস্ত থাকতাম আমরা। আর ছোট থেকেই আমার বোনের সঙ্গে ওর বন্ধুত্ব বেশি ছিল। আমার সঙ্গে কম কথা হতো ওর।

Kajol-Rani
Kajol-Rani

 

তাই সেই ভাবে ওর সাথে বন্ধুত্ব তখন গড়ে ওঠেনি”। রানী বলেন, “আমি ছোট থেকেই ওকে কাজল দিদি বলে চিনি। একটা দিদি হওয়ার জন্য যে সম্মান দেওয়া উচিত সেটাই ওকে দিতাম তাই আমাদের মধ্যে প্রথম থেকেই দূরত্ব ছিল। ওর থেকে বেশি তানিশার সঙ্গে আমার কথা হতো। আর এমনিতেই পরিবারের ছেলেদের সঙ্গে কাজলের বন্ডিং বেশি ছিল মেয়েদের থেকে”।

রাণী মুখার্জী মাত্র ১৭ বছর বয়সে করণ জোহারের এই ছবিতে অভিনয় করেন। আর এই ছবিই ছিল তার সব থেকে বড় টার্নিং পয়েন্ট। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি অভিনেত্রীকে। এই ছবির হাত ধরেই নাম যশ খ্যাতি সবকিছুই মিলেছে রানী মুখার্জীর। তারপর থেকেই একের পর এক ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: Sonakshi Sinha- Zaheer Iqbal: বিয়ের এই সপ্তাহের মধ্যেই সোনাক্ষী-জাহির ছুটলেন হাসপাতালে! তবে কি অন্তঃসত্ত্বা? জল্পনা তুঙ্গে!

About Author
Ankana Chowdhury

নমস্কার আমার নাম অঙ্কনা চৌধুরী। আমি বিগত দু'বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়াতে কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। এই দু বছরে আমি বিভিন্ন ধরনের বিষয়ের উপরে জেনারেল নিউজ লিখেছি। এবং বর্তমানে আমি অনেকটাই কাজ শিখে এই জেনারেল নিউজ লেখায় নিজেকে সাবলীল করে তুলেছি। এই কয়েক বছরে আমার অভিজ্ঞতা ভীষণই ভালো।