লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

কন্যা সন্তান জন্মালেই পাবেন ৫০ হাজার টাকা, রাজ্য সরকারের নিয়ে এলো আরো একটি নতুন প্রকল্প

Published on:

WhatsApp Group Join Now

Bhagyalakshmi Scheme: আমাদের দেশে কন্যা সন্তানকে মা লক্ষ্মী রূপে পূজা করা হয়। তাই প্রত্যেক ঘরে কন্যা সন্তান জন্মানোর সাথে সাথেই সরকারের তরফ থেকে আর্থিকভাবে সাহায্য করা হয়ে থাকে। আর এই কারণেই কন্যা সন্তানদের বাবা-মায়েদের তাদের পড়াশোনা চলা অব্দি কোন চিন্তাই থাকে না। সরকারের পক্ষ থেকে তাদের জন্য নানান রকম প্রকল্প চালু করা হয়েছে ইতিমধ্যেই, যেখান থেকে তারা পড়াশোনার জন্য আর্থিক সাহায্য পেয়ে থাকে। সম্প্রতি সেরকমই কন্যা সন্তানদের জন্য আরও একটি নতুন প্রকল্প নিয়ে এসেছে সরকার। প্রকল্পটির নাম ভাগ্যলক্ষী প্রকল্প। চলুন তাহলে আজকের প্রতিবেদনে এই নতুন ভাগ্যলক্ষ্মী প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

কি এই ভাগ্যলক্ষ্মী প্রকল্প?

ভাগ্যলক্ষী প্রকল্পের মাধ্যমে কন্যা সন্তান জন্মানোর সাথে সাথেই সরকারের তরফ থেকে কন্যা সন্তানকে ৫০,০০০ টাকা দেওয়া হয়ে থাকে। তবে এই টাকা বন্ড আকারে দেওয়া হয়। কন্যা সন্তানের ২১ বছর বয়স হলে বন্ডের অর্থরাশি দাঁড়ায় ২ লক্ষ টাকায়। এছাড়া কন্যা সন্তানের মায়েদের ৫১ হাজার টাকা দেওয়া হয় থাকে। সাথে বিভিন্ন শ্রেণীতে আর্থিক সাহায্য মিলতে থাকে, যেমন ষষ্ঠ শ্রেণীতে ৩ হাজার, অষ্টম শ্রেণীতে ৫ হাজার, দশম শ্রেণীতে ৭ হাজার এবং দ্বাদশ শ্রেণীতে ৮ হাজার টাকা দেওয়া হয়।

তবে সবাই এই প্রকল্প ভাগ করতে ভোগ করতে পারবে না। যাদের পরিবারে কম করে দুজন কন্যা সন্তান রয়েছে তারাই একমাত্র এই সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। আর যাদের মাসিক আয় ২০ হাজার বা তার কম তারাই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। আর এই প্রকল্পের আওতায় কন্যা সন্তানের নাম তার বয়সের ছ মাসের মধ্যেই নথিভুক্ত করাতে হবে।

আরও পড়ুন: Ke Prothom Kache Esechi: ছোট্ট মিহির গালে চুমু আঁকল ঋক ও মধুবনি! তাঁদের এক করতে পারবে কী মিহি?

উল্লেখ্য এই ভাগ্যলক্ষ্মী প্রকল্পের সূচনা করেছে উত্তর প্রদেশের সরকার। তাই শুধুমাত্র উত্তরপ্রদেশের কন্যা সন্তানের পিতা-মাতারাই এই প্রকল্পে নিজেদের সন্তানের নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন। এই প্রকল্পে আবেদন করতে হবে ভাগ্যলক্ষ্মী যোজনার নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে গিয়ে।

আবেদন করার গুরুত্বপূর্ণ নথি :
  • বাবা এবং মায়ের আধার কার্ড
  • মেয়ের আধার কার্ড
  • মেয়ের বার্থ সার্টফিকেট পিতামাতার বসবাসের শংসাপত্র পিতামাতার আয়ের শংসাপত্র পিতামাতার জাতিগত শংসাপত্র পিতামাতার চাকরির শংসাপত্র
About Author
Ankana Chowdhury

নমস্কার আমার নাম অঙ্কনা চৌধুরী। আমি বিগত দু'বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়াতে কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। এই দু বছরে আমি বিভিন্ন ধরনের বিষয়ের উপরে জেনারেল নিউজ লিখেছি। এবং বর্তমানে আমি অনেকটাই কাজ শিখে এই জেনারেল নিউজ লেখায় নিজেকে সাবলীল করে তুলেছি। এই কয়েক বছরে আমার অভিজ্ঞতা ভীষণই ভালো।