লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Scrutiny Review: ভাগ্য খুলল রিভিউ করেই! উচ্চমাধ্যমিকে নম্বর বাড়লো একাধিক পড়ুয়ার

Published on:

WhatsApp Group Join Now

Scrutiny Review: স্ক্রুটিনি রিভিউ (Scrutiny Review) একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় পরীক্ষার্থীদের জন্যে। তেমনটাই হলো এবারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার পরও। স্ক্রুটিনি করে ফল বেরোনোর পর ফের একবার বিরাট বদল উচ্চ মাধ্যমিকের মেধাতালিকায় (H.S Merit List)। ১১ জুন রিভিউয়ের ফল প্রকাশের পর জায়গা করে নিয়েছে আরো তিন জন পড়ুয়া। আগেও রিভিউ করার পর নম্বর বেড়েছে একাধিক পড়ুয়ার।

স্ক্রুটিনি করে পড়ুয়াদের নম্বর বাড়ার পর এবিষয়ে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি সঞ্জীব ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘মূল্যায়নের ক্ষেত্রে বেশ কিছু জায়গায় ভুল হয়েছে। সঠিক উত্তর লেখার পরও খাতায় শূন্য দেওয়া হয়েছে। পুনর্মূল্যায়নের পর আবার সে নম্বর পেয়েছে। কোন‌ও কোন‌ও ক্ষেত্রে দুই বা তিন নম্বর দেওয়া হয়েছে।’ এবছর উচ্চ মাধ্যমিকের পড়ুয়াদের স্কুটিনি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে আরও বেশ কিছু ভুলভ্রান্তি। বেশ কিছু ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে পড়ুয়াদের সঠিক নম্বর দেওয়া হয়নি। চলতি বছরে ৮ই মে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশিত হয়েছিল। সেই সময় উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম ১০-এর যে যে মেধা তালিকা শিক্ষা সংসদের তরফে প্রকাশ্যে আনা হয়েছিল তাতে জায়গা পেয়েছিল ৫৮ জন কৃতি পড়ুয়ার নাম।

তবে দেখা যাচ্ছে বেশ খানিকটা ফারাক। ৮ই মে থেকে ১১ই জুনের মধ্যে একাধিকবার ফল প্রকাশিত হওয়ার পর মেধাতালিকায় জায়গা করে নিয়েছে মোট আরো ১৫ জন। যার ফলে এই প্রথম দশের মেধা কৃতি পড়ুয়াদের তালিকা চওড়া হয়েছে আরও। বর্তমানে এই কৃতির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে মোট ৭৩ জন। এর আগে উচ্চমাধ্যমিকে তৎকাল স্কুটিনি এবং রিভিউ-এর ফল প্রকাশিত হওয়ার পর মেধা তালিকার স্থান পেয়েছিল আরো ১২ জন।

তখন এই প্রথম দশের তালিকায় নাম ছিল মোট ৭০ জন কৃতির। আর এবার যুক্ত হল আরও তিনজন পড়ুয়ার নাম। এ প্রসঙ্গে নারকেলডাঙা হাইস্কুলের শিক্ষক স্বপন মন্ডলের যুক্তি, ‘প্রতি বছরই দেখা যায় পিপিএস, পিপিআর বা আরটিআই-এর পর কিছু ছাত্রছাত্রীর নম্বর পরিবর্তন হয় এবং মেধাতালিকাতেও পরিবর্তন হয়। এ বারেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তাই আমরা মনে করি সব কিছু সম্পূর্ণ হয়ে যাওয়ার পরই মেধাতালিকা প্রকাশ করা উচিত উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের।’

এবছর প্রথমবার মেধা তালিকা প্রকাশ্যে আসার পর প্রথম যে ৫৮ জনের তালিকা প্রকাশ্যে আনা হয়েছিল তার মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ২৩ এবং ছাত্রের সংখ্যা ছিল ৩৫ কিন্তু। পরবর্তীতে এই তালিকায় আরো যোগ হয় আরো ১২ জন কৃতি পড়ুয়া। তাদের মধ্যে অষ্টম স্থানে একজন, নবম স্থানে তিনজন এবং দশম স্থানে মোট আট জন জায়গা করে নেয়।

আরও পড়ুন: Summer Vacation: বর্ষার দেখা নেই দক্ষিণবঙ্গে, আবারও তীব্র গরমে ছুটি পড়তে চলেছে স্কুলগুলি?

তবে এই ১১ই জুন নতুন করে মেধাতালিকার স্ক্রুটিনির পর যে তিনজন পড়ুয়ার নম্বর বেড়েছে তারা হলেন সোহম সাহা,প্রাঞ্জল ঘোষ এবং সাত্যকি সাহা। এদের মধ্যে কোচবিহারের মাথাভাঙা হাই স্কুলের সোহম সাহার নম্বর ৪৮২ থেকে বেড়ে হয়েছে ৪৮৯। যার ফলে মেধা তালিকার অষ্টম স্থান অধিকার করেছে। এছাড়া ৪৮৪ থেকে ৪৮৮ নম্বর পেয়ে নবম স্থান দখল করেছে বাঁকুড়া বিষ্ণুপুর হাই স্কুলের প্রাঞ্জল ঘোষ। আর ৪৮৬ নম্বর থেকে ৪৮৭ নম্বর পেয়ে দশম স্থানে রয়েছে মালদা এসি ইনস্টিটিউশনের সত্যকি সাহা।

About Author
Adhrit Roy

বিগত প্রায় চার বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত। যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।