লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী শিমুলই প্রধান আকর্ষণ, নায়িকার চরিত্র এমনই থাকুক চান নেটিজেনরা

Published on:

জি বাংলায় (Zee Bangla) শুরু হয়েছে বেশ কয়েকটি নতুন ধারাবাহিক। সেই ধারাবাহিক গুলির মধ্যে থেকে এখন সব থেকে বেশি চর্চায় রয়েছে ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar kache koi moner kotha)। এই ধারাবাহীকে প্রধান চরিত্রে রয়েছেন মানালি দে (Manali Dey)। এই চরিত্রের নাম শিমুল (Shimul)। যত দিন যাচ্ছে শিমুল চরিত্রটি দর্শকদের কাছে তত ভালো লাগছে। বহুদিন পর এমন এক প্রতিবাদী চরিত্র উপহার পেয়েছে দর্শকরা। এই ধারাবাহিকে যেমন নাটকীয়তা (Dramatic) রয়েছে তেমনভাবেই রয়েছে বাস্তবতা। আর এই দিক দুটির কারণেই ধারাবাহিকটি বেশি করে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

ধারাবাহিকটি শুরু হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছে। শিমুল এমন একটি চরিত্র যা সমাজে মেয়েদের অবস্থা চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিচ্ছে। একদম বাস্তব দিক থেকে উঠে এসেছে এই সিরিয়ালে (Kar kache koi moner kotha plot)। তবে অন্যান্য চরিত্রের মতো মুখবুদের সহ্য করছে না শিমুল। প্রতিটি লাঞ্ছনা গঞ্জনার যুক্তিসহ উত্তর দিচ্ছে সে। ‘কার কাছে কই মনের কথা’ ধারাবাহিকের বিপরীতে যেসব প্রস্তুত ধারাবাহিক গুলি রয়েছে সেগুলিতে অতি নাটকীয়তা দেখতে পাওয়া যায়। শিক্ষণীয় কোন বিষয়ই নেই এসব ধারাবাহিক। কিন্তু সেই সব দিক থেকে ‘কার কাছে কই মনের কথা’ ধারাবাহিক অনেকটাই স্বতন্ত্র।

অবশ্যই বাস্তব দিকগুলোই অনেকে মেনে নিতে পারছেন না। তাদের মতে এগুলি নোংরামি। কিন্তু এই নোংরামি গুলো কোথাও না কোথাও গিয়ে বাস্তব হয়েই ফুটে ওঠে। আর সেই বাস্তবটাই ধরা দিয়েছে এই ধারাবাহিকে। গৃহস্থ বাড়ির মেয়ে বউরা এই ধারাবাহিকের সাথে নিজেদের অবস্থা অনেকটাই মেলাতে পারছে বলেই ধারাবাহিকটি অল্প কয়েক দিনেই টিআরপি তালিকা জায়গা পেয়ে গেছে। বোঝাই যাচ্ছে ধারাবাহিকটি অনেক বেশি প্রাসঙ্গিক।

যুগ বদলেছে, সময় বদলেছে। এখন আমরা আধুনিক সমাজে বাস করি। কিন্তু তা সত্ত্বেও এমন বর্বরোচিত ব্যবহার বাড়ির মেয়ে বউদের সহ্য করতে হয়। যেখানে নিজের মায়ের সাথে দেখা করতে গেলেও অনুমতি নিতে হয় শ্বশুরবাড়ির। আর বন্ধু-বান্ধবীর কথা তো ভুলেই যেতে হয়। সারাদিন সংসারের কাজ করেও মেলে না কোন সম্মান। তা বলে যে এগুলো প্রতিটি গৃহস্থ বাড়ির ঘটনা তা কিন্তু না। অনেক বাড়িতেই এখনো এই ধরনের চিত্র ফুটে ওঠে। আবার এমন বাড়িও রয়েছে যেখানে বৌমা বাবার বাড়ির থেকেও সুখে থাকে।

About Author
Adhrit Roy

বিগত প্রায় চার বছর ধরে ডিজিটাল মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত। যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।

Leave a Comment