লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Kar Kache Koi Moner Kotha: বড় সিদ্ধান্ত নিল বিপাশা! মধুরিমার শর্তে রাজি হয়ে চন্দনকে জেল থেকে ফিরিয়ে আনবে সে!

Updated on:

Kar Kache Koi Moner Kotha:  জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar Kache Koi Moner Kotha)। ধারাবাহিকের গল্পে এসেছে নয়া মোড়। ধারাবাহিকের গল্পে এই মুহূর্তে, বিপাশার কাছে করজোরে ছেলেকে ছাড়ানোর অনুরোধ নিয়ে এসেছে চন্দনের মা। বিপাশাকে তিনি বলেন তার ছেলেকে যেন সে জেল থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসে। চন্দন না থাকলে সংসারটা ভেসে যাবে। না খেতে পেয়ে মারা পড়বে বাড়ির সকলে। চন্দনই তাদের বাড়ির মাথা। সেই একমাত্র পরিবারের উপার্জনকারী মানুষ। চন্দন না থাকলে তাদের বাড়ি শ্মশানে পরিণত হবে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

তখন সেখানে উপস্থিত হয় বসুন্ধরা। বিপাশাকে বলে মধুরিমা তাকে মারধর করছে। এ কথা শুনে মধুরিমাকে সরাসরি প্রশ্ন করে বিপাশা। মধুরিমা জানায়, বসুন্ধরা বাবার কাছে যাবে বলে জেদ করছে। মধুরিমাও ঝোপ বুঝে কোপ মারে। বিপাশাকে অনুরোধ করে চন্দনকে ছড়িয়ে আনার জন্য। চন্দন ছাড়া তাদের বাড়িতে আর কেউ রোজগেরে নেই। মধুরিমাকে চাকরি করতে গেলে বসুন্ধরার দেখাশোনা করার মতো কেউ নেই।

Kar Kache Koi Moner Kotha New Episode: 

উত্তরে বিপাশা বলে, চন্দনকে সে ছাড়িয়ে আনলে তাকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে হবে। চন্দনকে হাড়ে হাড়ে চেনে সে। বিপাশা বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেবে। আর সারাজীবন তাকে শান্তিতেও বাঁচতে দেবে না। এ কথা শুনে মধুরিমা বলে, চন্দন এমন কিছু করবে না। কারণ এই বাড়ি এখনও তাদের শাশুড়ি মায়ে। তাই তিনি যা চাইবেন, তাই সর্বোচ্চ। তাই বিপাশা যেন চন্দনকে ছাড়িয়ে আনে। বসুন্ধরাও বিপাশাকে এক কথাই বলে।

তারপর বিপাশা বড় সিদ্ধান্ত নেয়। মধুরিমা আর চন্দনের মাকে বলে শুধুমাত্র বসুন্ধরার কথা ভেবে সে চন্দনকে ছড়িয়ে আনতে যাবে। এদিকে শিমুল স্কুল থেকে ফিরে দেখে তার জন্য মধুবালা দেবী লুচি, বেগুন ভাজা ভেজে রেখেছে। শিমুলকে ইতস্তত করতে দেখে পরাগ বলে মধুবালা দেবীর ইচ্ছে হয়েছে তাই রান্না করেছেন। কিন্তু শিমুলের বুঝতে বাকি থাকে না এই সবকিছু করা হয়েছে তার জন্য। কিন্তু মধুবালা দেবী তাকে খেতে অনুরোধ করায় আর কিছুই বলতে পারে না সে।

অপরদিকে, বিপাশা থানায় গিয়ে চন্দনের উপর থেকে কেস তুলে নিতে চায়। অফিসার কেন প্রশ্ন করলে, বিপাশা বলে চন্দনের একটা ছোট মেয়ে আছে। আর সে তার বাবার জন্য ছটফট ক রছে। বিপাশার জীবন নষ্ট হয়েছে ঠিকই। তবে সে বাচ্চাটার জীবন নষ্ট হতে দেবে না। বসুন্ধরার মুখ চেয়ে সে চন্দনকে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে এসেছে। বিপাশার কথা শুনে অবাক হয়ে যায় চন্দন। বসুন্ধরার জন্য তার উপর থেকে কেস তুলে নিচ্ছে সে! তাহলে কি এবার নিজের ভুলটা বুঝতে পারবে চন্দন? জানতে হলে চোকহ রাখুন জি-এর পর্দায়।

আরও পড়ুন: Kiran Dutta Trolled Rachana: জল না খেলে কতটা মাথা খারাপ হতে পারে! সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল প্রার্থীকে কটাক্ষ বং-গাইয়ের!

About Author

Leave a Comment