লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলরেসিপি

Lakshmir Bhandar: বড় খবর, লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের ‘বেশি’ টাকা, পাচ্ছেন কারা? দেখুন

Published on:

Lakshmir Bhandar:সামনে লোকসভা ভোট রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল এপ্রিল মাস থেকেই লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা বেশি দেওয়া হবে। লোকসভা ভোটের আগে টাকা বাড়ানো হয়েছে কিছুটা ক্ষেত্রে শাসকদলের পক্ষে মানুষের মন ঘোরানোর জন্য। লক্ষ্মীর ভান্ডার স্বরূপ মাসিক ৫০০ প্রদান করা হতো আগে ২৫ থেকে ৬০ বয়সী মহিলাদের জন্য। সেই টাকা বাড়িয়ে ১০০০ টাকা করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই সরকারি তহবিল থেকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের সেই বর্ধিত টাকা বণ্টন শুরু হয়ে গিয়েছে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

Lakshmir Bhandar Scheme:

তবে আবার তপসিলি জাতির জন্য আরো ২০০ টাকা বেশি বরাদ্দ করে হয়েছে, অর্থাৎ লক্ষ্মীর ভান্ডার স্বরূপ তারা পায় থাকেন ১২০০ টাকা। ১লা এপ্রিল ব্যাংক বন্ধ থাকায় ২রা এপ্রিল থেকেই টাকা ঢুকতে শুরু করেছে লক্ষ্মীর ভান্ডারের ২৫ থেকে ৬০ বয়সী মহিলাদের অ্যাকাউন্টে। টাকা ডবল হয়ে যাওয়ার ফলে রাজ্যের ২৫ থেকে ৬০ বছর বয়সি, আরও বহু সংখ্যক মহিলা উপকৃত হতে চলেছেন বলেই দাবি মুখ্যমন্ত্রীর।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচবিহারের মাথাভাঙায় লোকসভা প্রচারের সভা থেকে জানিয়েছিলেন, “ইতিমধ্যে ১ কোটি ৯৯ লক্ষ মহিলার অ্যাকাউন্টে বর্ধিত হারে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা ঢুকে গিয়েছে। এছাড়া ৬ লক্ষ মহিলা রয়েছেন যাঁদের ৬০ বছর বয়স হয়েছে। তাঁদের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার থেকে বার্ধক্য ভাতা অর্থাৎ (লক্ষ্মীর ভান্ডার ২)-তে পরিণত হয়েছে।” ২০২৪ রাজ্য বাজেটে এবার এই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প নিয়ে রাজ্যের অর্থ দফতরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, চলতি অর্থবর্ষে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে ভাতা ৫০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে (Lakshmir Bhandar)।

আরও পড়ুন: গরম পড়তেই ফ্লিপকার্টে চলছে বিশাল সেল, ‘হাফ’ দামে পাওয়া যাচ্ছে ব্র্যান্ডের স্প্লিট AC!

তবে যদি কেউ এখনো লক্ষ্মীর ভান্ডারের জন্য আবেদন না করে থাকেন তাহলে তাদের উদ্দেশ্যে বলে রাখা ভালো, এবার থেকে মহিলাদের আর লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে আবেদন করার জন্য দুয়ারে সরকার শিবিরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। সারা বছরই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের জন্য আবেদন করা যাবে। গ্রামাঞ্চলের মহিলারা স্থানীয় বিডিও অফিসে গিয়ে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন। পৌরসভা এলাকার বাসিন্দারা মহকুমাশাসকের অফিসে গিয়ে এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করবেন। আর কলকাতা পুরনিগমের অন্তর্গত বাসিন্দারা কেএমসি অফিসে গিয়ে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের নাম নথিভূক্ত করার আবেদন করতে হবে। তবে, এরই আগের মতই দুয়ারে সরকার শিবিরেও আবেদন করার সুযোগ থাকবে (Lakshmir Bhandar)।

About Author
Neha Basu

বিগত প্রায় ২ বছর ডিজিটাল মিডিয়ার কাজের সঙ্গে যুক্ত। যে কোনো ধরনের জেনারেল নিউজ লেখায় পারদর্শী।

Leave a Comment